Breaking News

গ্রামের সেই দরিদ্র শামসুন্নাহারই হয়ে উঠলেন আজকের পরীমনি

প্রকৃত নাম শামসুন্নাহার স্মৃতি। পরীমনি নামেই সবাই চেনে তাকে। ডানা কাটা পরী কিংবা শুধু-ই পরী নামে ভক্তরা ডাকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরীমনির ভেরিফাইড পেইজে প্রায় ৯২ লাখ ফলোয়ার রয়েছে।

বিকাশ অ্যাপ ইন্সটল করলেই পাবেন  ১০০ টাকা বোনাস! Bkash App Download Link

২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত ফোর্বস ম্যাগাজিনের করা এশিয়ার ১০০ ডিজিটাল তারকার তালিকায় রয়েছে পরীমনির নাম। ওই তালিকায় তার সঙ্গে রয়েছে অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, মাধুরী দীক্ষিতের মতো জনপ্রিয় বলিউড তারকাদের নামও।

অনলাইনে প্রকাশিত ওই তালিকায় পরীমনি সম্পর্কে লেখা হয়েছে, ফেসবুকে প্রায় ১ কোটি অনুসারী রয়েছে পরীমনির। তার প্রকৃত নাম শামসুন্নাহার স্মৃতি।সমপ্রতি নতুন করে আবার ‘টক অফ দ্য কান্ট্রি’ পরীমনি। যদিও সেটা ভিন্ন কারণে কিন্তু কে এই পরীমনি তা নিয়ে সকলেরই রয়েছে ব্যাপক কৌতুহল। জেনে নেয়া যাক শামসুন্নাহার স্মৃতি থেকে পরীমনি হয়ে উঠার গল্প:

পরীমনি ১৯৯২ সালে নড়াইলে জন্মগ্রহণ করেন। তার নাম ছিল শামসুন্নাহার স্মৃতি। খুব ছোটবেলায় মা এবং পরে বাবাকে হারানোর পর পরীমনি বড় হয়েছেন পিরোজপুরে নানা শামসুল হক গাজীর কাছে।

সেখান থেকেই তিনি মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করেন। ২০১১ সালে ঢাকায় চলে আসেন এবং বাফায় নাচ শেখেন। মডেলিং থেকে ছোট পর্দায় এবং এরপর রূপালী পর্দায় অভিনয় শুরু করেন পরীমনি।

সাধারণত কোনো নবাগত অভিনেতা বা অভিনেত্রীর কোনো চলচ্চিত্র মুক্তি পাওয়ার পর বা ওই চলচ্চিত্র হিট হওয়ার পরই সাধারণ মানুষ ওই অভিনেতাকে চেনেন বা তার সম্পর্কে জানেন। এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম ছিলেন পরীমনি।

২০১৩ সালের শেষের দিকে প্রথম ছবির শুটিং করেন তিনি। ওই ছবি মুক্তি পাওয়ার আগেই তিনি অভিনয় করে ফেলেন এক ডজনেরও বেশি ছবিতে। এ ছাড়া চুক্তিবদ্ধ হন দেড় ডজন ছবিতে।কে এই পরীমনি? রীতিমতো হৈচৈ পড়ে যায় চারদিকে।

কিন্তু অতি অল্প সময়ে এত বেশি সংখ্যক ছবিতে অভিনয় করলেও আলোর মুখ দেখছিল না তার অভিনীত কোনো ছবি-ই। অবশেষে ২০১৫ সালের ২৭শে ফেব্রুয়ারি ঢাকাসহ সারা দেশের অর্ধশতাধিক প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় পরীমনির প্রথম চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসা সীমাহীন’।

error: Content is protected !!